Saturday, May 27, 2017

নতুন চাঁদ দেখার দু’আ জেনে নিন : নতুন চাঁদ দেখার পর দোয়া পাঠ করা সুন্নাত


যারা আজ চাঁদ দেখার ইচ্ছা করছেন তারা এই দু’আ টি মুখস্থ করে রাখুন। কারন নতুন চাঁদ দেখার পর দোয়া পাঠ করা সুন্নাত। (কোন  কারণে চাঁদ না দেখতে পেলে সংবাদ শুনেও এই দোয়া পড়লে হয়ে সুন্নাত পালন যাবে)

 
.
আবদুল্লাহ ইবন উমর (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ ﷺ যখন চাঁদ দেখতেন, তখন তিনি বলতেন,
اللَّهُمَّ أَهِلَّهُ عَلَيْنَا بِالْيُمْنِ وَالإِِيمَانِ ، وَالسَّلامَةِ وَالإِِسْلامِ ، رَبِّي وَرَبُّكَ اللَّهُ
(আল্লাহুম্মা আহিল্লাহু আলাইনা বিল ইউমনি ওয়াল-ঈমানি ওয়াস-সালামাতি ওয়াল-ইসলাম, রাব্বী ওয়া রব্বুকাল্লাহ)।
-হে আল্লাহ আপনি একে আমাদের ওপর বরকত ও ঈমানের সঙ্গে এবং সুস্থতা ও ইসলামের সঙ্গে উদিত করুন, তোমার এবং আমার রব হলেন আল্লাহ। [তিরমিযী হা/৩৪৫১, মুসনাদ আহমদ হা/১৩৯৭; সহীহ ইবন হিব্বান হা/৮৮৮, হাদীস সহীহ]
-

প্রচারে - IslamHouse.  বাংলা - Bengali - بنغالي




 

Friday, May 26, 2017

জুম্মাহর আমল - 27- Jummah Amal –27.

                                                بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ
                In the name of Allah, The Beneficent, The Merciful.
মহান আল্লাহর নামে, তার নামে যিনি রহমান ও রহিম

--------------------------------------[ Surah Al kahaf ]-------------------------------------------------
                               
                الْمَالُ وَالْبَنُونَ زِينَةُ الْحَيَاةِ الدُّنْيَا وَالْبَاقِيَاتُ الصَّالِحَاتُ خَيْرٌ عِندَ رَبِّكَ ثَوَابًا وَخَيْرٌ أَمَلًا                (46
ধনৈশ্বর্য ও সন্তান-সন্ততি পার্থিব জীবনের সৌন্দর্য এবং স্থায়ী সৎকর্মসমূহ আপনার পালনকর্তার কাছে প্রতিদান প্রাপ্তি ও আশা লাভের জন্যে উত্তম।    

Wealth and sons are allurements of the life of this world: But the things that endure, good deeds, are best in the sight of thy Lord, as rewards, and best as (the foundation for) hopes.    
                                                          
                وَيَوْمَ نُسَيِّرُ الْجِبَالَ وَتَرَى الْأَرْضَ بَارِزَةً وَحَشَرْنَاهُمْ فَلَمْ نُغَادِرْ مِنْهُمْ أَحَدًا  (47
যেদিন আমি পর্বতসমূহকে পরিচালনা করব এবং আপনি পৃথিবীকে দেখবেন একটি উম্মুক্ত প্রান্তর এবং আমি মানুষকে একত্রিত করব অতঃপর তাদের কাউকে ছাড়ব না।

One Day We shall remove the mountains, and thou wilt see the earth as a level stretch, and We shall gather them, all together, nor shall We leave out any one of them.          
----------------------------------------------------------------------------------------------------------
জুম্মাহর আমল সমূহ:
১. সূরা কাহাফ তেলাওয়াত করা. ২. নখ কাটা, ৩. মেসওয়াক করা, ৪. জুম্মাহর নিয়তে গোসল করা, ৫.উত্তম কাপড়টি পরা,৬. সুরমা ব্যবহার করা, ৭. আতর / সুগন্ধি ব্যবহার করা, ৮. পেয়াজ রসুন না খাওয়া, ৯. পায়ে হেটে মসজিদে যাওয়া, ১০. ইমামের নিকটে বসা.
-------------------------------------------------------------------------------------------------
JUmmahr Amal (should to do)
-------------------------------------------------------------------------------------------------
  1. Cut nails. 2. Have gusul /bath and weare perfume.  3. do clerk , 4.  Reading surah Al Kahaf.  5. sending a lot of blessing to Prophets, 6. avoid onion and  Garlic. 7.  weare best dress of yours.  ( not best of market)   8. Go for salat / prayer at 1st moment of Azan.  9. Seat near of Imam.


ডাউনলোড প্রিন্ট  জুম্মাহ আমল ওয়ালমেট



সব চাইতে বড় যে পাপ গুলি আমরা বেশি পছন্দ করি ; সূরা আল হুজুরাত থেকে

 প্রথমেই জানিয়ে রাখছি ............ 


"দূর্ভোগ সেই সব মিত্থাবাদি পাপীর, যে আল্লাহর আয়াত আবৃত্তি শোনে অথচ ঔদ্ধত্তের সাথে নিজ মতবাদে অটল থাকে যেন তা সে শোনেনি। ওকে সংবাদ দাও মর্মান্তুদ শাস্তির"
....................................
------------Al Quran: surah jaasiyah,, ayat: 7 and 8.


 সূরা আল হুজুরাত  ১১ নং আয়াতে  ৬ টি হারাম কাজ ও তা মানতে না পারা কুফুরীঃ 
হে ঈমানদারগণ, পুরুষরা যেন অন্য পুরুষদের বিদ্রূপ না করে৷ হতে পারে তারাই এদের চেয়ে উত্তম | আর মহিলারাও যেন অন্য মহিলাদের বিদ্রূপ না করে | হতে পারে তারাই এদের চেয়ে উত্তম | তোমরা একে অপরকে বিদ্রূপ করো না | এবং পরস্পরকে খারাপ নামে ডেকো না | ঈমান গ্রহণের পর গোনাহর কাজে প্রসিদ্ধ লাভ করা অত্যন্ত জঘন্য ব্যাপার | যারা এ আচরণ পরিত্যাগ করেনি তারাই জালেম |

 সহজেই বুঝতে পেরেছেন, তবু দেখুন শেষ আয়াত বলছে - যারা এগুলো পরিত্যাগ করেনা। অর্থাৎ জানার পরও পরিত্যাগ করেনা  তারাই জালেম। জালেম অর্থ অতযাচারী, অনাচারী, পাপী, শাস্তিযোগ্য। 


সূরা আল হুজুরাত ১২ নং আয়াতে ৩ টি হারাম কাজ ও তা মানতে না পারা কুফুরীঃ 
হে ঈমানদাগণ, বেশী ধারণা ও অনুমান করা থেকে বিরত থাকো কারণ কোন কোন ধারণা ও অনুমান গোনাহ | দোষ অন্বেষন করো না | আর তোমাদের কেউ যেন কারো গীবত না করে | এমন কেউ কি তোমাদের মধ্যে আছে, যে তার নিজের মৃত ভাইয়ের গোশত খাওয়া পছন্দ করবে ? দেখো, তা খেতে তোমাদের ঘৃণা হয়৷ আল্লাহকে ভয় করো৷ আল্লাহ অধিক পরিমাণে তাওবা কবুলকারী এবং দয়ালু |

 অনেকে ধারণা করে যেমন - আপনি সেই সব লোকদের অন্ধ অনুস্বরণ না করলে আপনি জাহেল (তাদের মতে),  আপনি  ইসলামের দুষমন। অথচ  কোন আলেম কখনও  কারো কথা যাচাই ছাড়া গ্রহন করেন নি।  এদের কথায় কস্ট নিবেন না। সব কথার বিচার আল্লাহ করবেন।  তারপর শুধু অনুমান করাই না, কারো দোষ খোঁজা একটা কবিরা গোনাহ। মানুষ মাত্র ই ভুল, ভুল খুঁজলে একজনের হাজার ভুল বাহির করা যায় এমনকি ভালো কাজের ও।  তাতে হানাহানি বাড়ে। ভুল সবাই র ই থাকে, নিজেরটা দেখা যায়না নিজে এই আর কি। তাই সবার ভালো দেখলে  কোন হানা হানি হয়ন। আর আরেকটা পাপ হলো গীবত। আমরা বাঙ্গালী ছলে কৌশলে গীবত কে জায়েজ বানাই তারপর গীবত করি। একের ভেতর থাকা দোষ অনযকে বলা গীবত। আর দোষ না থাকলে তা বলা অপবাদ।



আল কুরআন-  সূরা আল হুজুরাত


আজকের ২ টি আয়াতে এই ৯ টি কাজ গুলো করা হারাম ও কবিরা গুণাহ | অথচ আজকালের কতিপয় মুসলমান রা অপরের রটনা করতে গিয়ে নিজের শ্রেষ্টত্ব প্রচার করতে গিয়ে উপরের কাজগুলো করে ফেলে | কেউ বা ফ্রেন্ড বা বন্ধু দের সাথে ইয়ার্কী করে এগুলা করে | অথবা যার সাথে সম্পর্ক একটু ভাল তার সাথে করে | আপনারা সাবধান হোন | ইসলাম শুধু ধর্মের নাম নয়, ইসলাম দিয়েছে পরিপুর্ণ জিবন  ব্যাবস্থা  ও গাইড, সেভাবে দিয়েছে যেভাবে দিলে শান্তি আসে ও সুখ আসে | তাই জীবনে শান্তি অটুট রাখতে আয়াত এড়িয়ে যাবেন না | আয়াত মান্য করা মুসলিমের ইমানী দায়িত্ব | অর্থাৎ ইমান রাখতে হলে আয়াত মানতে হবে | কুফ্ফার হতে চাইলে আয়াত মানার দরকার পড়েনা |
Designed by: SmKhalid ♥ Created By: Readme2know Template